ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং ডিজিটাল মার্কেটিং কেন প্রয়োজন?

  • Home
  • ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং ডিজিটাল মার্কেটিং কেন প্রয়োজন?
blog-img
  • Mar 2023, 04:45 AM

ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং ডিজিটাল মার্কেটিং কেন প্রয়োজন?

ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

বর্তমান যুগ হলো ডিজিটাল এর যুগ।  ঘরে বসে এখন অনলাইনে পণ্য বেচা কেনা  থেকে শুরু করে, অনলাইনে ইনকাম করা সবটাই এখন এই ডিজিটাল মার্কেটিং এর ওপর নির্ভর করে। ডিজিটাল মার্কেটিং হলো অনলাইনে পন্য বেচা কেনা বা বিভিন্ন সার্ভিসের বিজ্ঞাপন প্রচার করাকেই বুঝায়। এটা হতে পারে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে, হতে পারে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর মাধ্যমে, হতে পারে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের মাধ্যমে, অথবা হতে পারে ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে।

আবার ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া যেমন, রেডিও ,টিভি ইত্যাদিতে পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার করাও এক ধরণের ডিজিটাল মার্কেটিং। এছাড়া মোবাইলে ইন্সট্যান্ট মেসেঞ্জিং, ইলেকট্রনিক বিলবোর্ড, মোবাইল এপ্লিকেশনের মাধ্যমে পণ্যের প্রচারণাকেও ডিজিটাল মার্কেটিং বলা যেতে পারে। তারমানে, বর্তমান বিশ্বে নিজেকে ও নিজের ব্যবসাকে  টিকিয়ে রাখতে হলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কোনো বিকল্প নেই।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিভিন্ন ধাপসমূহ:

ডিজিটাল মার্কেটিং এ অনেকগুলো ধাপ রয়েছে। ডিজিটাল মার্কেটাররা বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে যেগুলো প্রয়োগ করে মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং করে থাকেন। নীম্নে সেই সব গুরুত্বপূর্ণ  ধাপগুলো দেয়া হল:

১. সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বা এসএমএম

২. এসইএম বা সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং

৩. এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন

৪. কন্টেন্ট মার্কেটিং

৫. ইমেইল মার্কেটিং

৬. এফিলিয়েট মার্কেটিং

৭. সিপিএ মার্কেটিং

৮. ই-কমার্স প্রোডাক্ট মার্কেটিং

ডিজিটাল মার্কেটিংএর এই ধাপগুলো নিয়ে কোন এক সময় না হয় বিস্তারিত আলোচনা করা যাবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং কেন প্রয়োজন?

ডিজিটাল মার্কেটিং বর্তমান সময়ে মানুষের দৈনন্দিন জীবনে  অপরিহার্য অংশে পরিণত হয়েছে। কারণ মানুষ এখন যেকোন পণ্য কেনার আগে ইন্টারনেটে ঐ পন্য সম্পর্কে জেনে নিয়ে তারপরে ক্রয় করে। তাছাড়া মানুষ এখন দোকানে ঘুরে ঘুরে কেনা কাটা করার চাইতে, অনলাইন থেকেই বেশির ভাগ কেনা কাটা করতে পছ্ন্দ করে।

তাই আপনি যদি একজন উদ্যোক্তা হন, তাহলে আপনার উচিত ডিজিটাল মার্কেটিং এর সাহয্যে নিজের ব্যবসাকে আরো বেশী বেশী মানুষের কাছে পৌঁছানো।

বর্তমানে প্রায় ২ বিলিয়ন মানুষ সমগ্র বিশ্বে  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করছে। প্রতিদিন এই সংখ্যাটি প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। যত বেশি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করবে তত বেশি মানুষের কাছে আপনি আপনার পণ্যে মার্কেটিং করার সুযোগ পাবেন। তাই ইন্টারনেটে পণ্যের মার্কেটিং করে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রচুর সুযোগ   ও সম্ভাবনা রয়েছে বলা যায়।

বর্তমান বিশ্বে ইন্টারনেট ব্যবহারের পরিসংখ্যান:

বর্তমান বিশ্বে প্রায় ৫.১১ বিলিয়ন মানুষ স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে। আর এই সংখ্যা খুবই দ্রুত গতিতে বেড়ে চলেছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা ঠিক রাখার জন্যে এমন অনেক মানুষও আছেন যারা একাধিক মোবাইল ব্যবহার করেন । ক্রেতার তথ্য সংগ্রহের অন্যতম মাধ্যম হলো ল্যাপটপ বা স্মার্ট ফোন।  প্রায় সব ল্যাপটপ বা স্মার্ট ফোন ব্যবহারকারীই আবার ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত। তাই  ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা যত বাড়বে অনলা্মইন মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তাও তত বাড়বে।

অনলাইনে ক্রেতাদের পরিসংখ্যান রিপোর্ট:

একটা স্ট্যাটিসটিক্সের ইউজার সার্ভে রিপোর্ট উল্লেখ করা হয়েছে যে, প্রায় ৮৪% বিক্রেতা, ক্রেতার তথ্য সংগ্রহ করার জন্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে ব্যবহার করছে । এছাড়া আরো একটি সার্ভের রেজাল্ট বলে দিচ্ছে যে, পুরো বিশ্বে মোট ৫৫% মানুষ বিভিন্ন পন্য ক্রয়ের জন্যে সামাজিক মাধ্যমকে ব্যবহার করছে। তার মানে ,ব্যাবসায়ীরা সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ক্রেতাদের পছন্দের পণ্য সম্পর্কে তথ্য এবং রিভিউ জানতে পারছে। আর ক্রেতারা যার উপস্থাপনা ও পণ্যকে পছন্দ করবে তার কাছ থেকে অনলাইনের মাধ্যমেই পণ্য বা সেবা ক্রয় করে থাকে।

গুগলে সার্চ করে তাদের পছন্দের ই-কমার্স ওয়েবসাইটে আসে ৪৩% ক্রেতা।পুরো দুনিয়ার প্রায় ৫১% ক্রেতা তাদের নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য অনলাইন থেকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কেনা-কাটা করে থাকে। এই সংখ্যাটি  দিন দিন আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে।

প্রায় ৭০% ক্রেতা যেকোন পণ্য কেনার আগে ইন্টার্নেটে সার্চ দিয়ে সেই পণ্য সম্পর্কে যাচাই বাছাই করেন। পণ্যটি পচ্ছন্দ হলে সাথে সাথেই  অনলাইনের মাধ্যমে পণ্যটি অর্ডার করে ফেলেন। আরো একটি মজার তথ্য হলো, ৮২% ক্রেতা মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যেই বিক্রেতার সাথে তাদের লাইভ চ্যাটের মাধ্যমে কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

এখন  হয়তো কিছুটা হলেও আন্দাজ করা  সহজ হচ্ছে যে,  ক্রেতারা কিভাবে অনলাইনে তাদের পছন্দের পণ্য কেনাকাটা করে থাকে। তাই এই ডিজিটাল যুগে, ডিজিটাল মার্কেটে টিকে থাকতে হলে আপনাকে অবশ্যই ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে চিন্তা করা উচিত। কারণ আপনার প্রতিদ্বন্দ্বীরা কিন্তু প্রতিনিয়ত তার ব্যবসাকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে তাদের পণ্য ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেয়ার প্রচেষ্টায় রয়েছেন। Unilever, Coca-Cola, Nestle  ইত্যাদি বড় বড়  মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানীগুলোও কিন্তু বেশ গুরত্ব সহকারে বর্তমানে ডিজিটাল দুনিয়াতে নিজেদের পণ্যের প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা:

 বর্তমান বিশ্বের বাজার ব্যবস্থা যেভাবে ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রিতে রূপ নিচ্ছে। সেদিন আর বেশি দূরে নেই যখন  মানুষ আর দোকানে কিংবা বাজারে গিয়ে পণ্য না কিনে তারা সবকিছুই অনলাইনে কিনবে। কারণ প্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান উন্নতির  সাথে সাথে মানুষের জীবনযাত্রা অনেক সৌখীন হয়ে পড়েছে। যার কারনে মানুষ এখন বাজারে গিয়ে পণ্য যাচাই বাছাই করে সময় নষ্ট  করেনা। বরং অনলাইনের মাধ্যমে কোন পণ্য  সার্চ করে পন্যের গুনগত মান সম্পর্কে জানতে বেশী সাচ্ছন্দ্য বোধ করে।  পছন্দ হলে সাথে সাথে সেই পণ্য একটি বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে অনলাইনের মাধ্যমেই কিনে নিতে পারছে।

 সুতরাং, অনলাইন বাজার ব্যবস্থা সম্পূর্ণরূপে ডিজিটাল মার্কেটিং এর ওপর নির্ভর করে। তাই আপনি যদি অনলাইন মার্কেটিং এর উপরে  দক্ষতা অর্জন করতে  না  পারেন, তাহলে আপনি এই অনলাইন বাজার ব্যবস্থায় টিকে থাকতে পারবেন না। কারণ আপনার পণ্য সম্পর্কে মানুষ যদি  অনলাইনে জানতে না পারে, কিংবা আপনার পণ্য যদি অনলাইনে কিনতে না পারে, তাহলে আপনার কাঙ্খিত লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী পণ্য বিক্রয় করা থেকে বঞ্চিত হতে পারেন।

তাই আপনার ব্যবসাকে যদি ভবিষ্যতে সফল হিসাবে দেখতে আগ্রহী হন । অথবা ক্রেতাদের সামনে নিজের পণ্যকে  আকর্ষনীয়ভাবে তুলে ধরতে চান তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং-ই হলো  নিজের ব্যবসাকে প্রচার ও প্রসারের একমাত্র সহজ উপায় ।

পরিশেষে, ডিজিটাল মার্কেটিং বর্তমান সময়ে একটি খুবই চাহিদা সম্পন্ন প্রযুক্তি। দিন দিন এর চাহিদা যে বৃদ্ধি পাবে তা উপরের আলোচনা থেকে একটি ধারণা পাওয়া যায়। তাই আপনি যদি ধৈর্য্য এবং অধ্যবসায়ের মাধ্যমে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে নিতে পারেন তাহলে মনে করবেন আপনি ভবিষ্যতের জন্য প্রস্তুত। তবে ব্যাপারটা বলা যতটুকু সহজ  করাটা  কিন্তু ঠিক ততটুকু কঠিন।

অনেক সময় নিয়ে, অনেক পরীক্ষা নিরীক্ষা করে এবং অনেক কিছু রিসার্চের মাধ্যমে নিজেকে ডিজিটাল মার্কেটিং এ দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারলেই তবে জীবনে সফলতা আসবে।আর যদি কিছুদিন কাজ করার পর  ধৈর্য্য হারিয়ে ফেলেন তাহলে সফলতা অধরাই থেকে যাবে ।

Know your health inside out with sleep tracking on the Galaxy Watch 6," the narrator explains, as the smartwatch sleep tracking features are displayed on the screen.